লিচু ফুলের মধু চেনার উপায়?

May 15, 2023 0 Comments

বাংলাদেশে লিচু গাছে সাধারণত মার্চ মাসে ফুল ফোটে। তাই বাংলাদেশে লিচু ফুলের মধু সংগ্রহের সময় সাধারণত মার্চ মাসে শুরু হয়। যখন বড় লিচু বাগানে প্রচুর পরিমাণে লিচুর ফুল ফুটতে শুরু করে, তখন মৌমাছি চাষীরা তাদের মৌমাছির বাক্সগুলি লিচু বাগানে রাখে এবং মধু সংগ্রহের প্রক্রিয়া শুরু করে।

তারপর লিচুর ফুল ফোটার সাথে সাথে মৌমাছিরা ওই এলাকা থেকে মধু সংগ্রহ করে তাদের মৌচাকে জমা করে। এভাবেই তৈরি হয় প্রাকৃতিক সব লিচু ফুলের মধু।

লিচু ফুলের প্রাকৃতিক মধুর বৈশিষ্ট্যঃ

১. লিচু ফুলের মধু হালকা অ্যাম্বার রঙের হয়। কিন্তু সময়, স্থান এবং ঘনত্বের উপর নির্ভর করে এটি একটু হালকা বা গাঢ় হতে পারে।

২. এই মধু খেতে খুবই সুস্বাদু, এর স্বাদ লিচু ফলের মতো। অর্থাৎ লিচু ফুলের মধু খেতে লিচু ফলের মতো।

৩. লিচু ফুলের মধুর মিষ্টি ঘ্রাণও লিচু ফলের সাথে মেলে।

৪. কখন মধু সংগ্রহ করা হয় তার উপর নির্ভর করে এই মধুর ঘনত্ব কম বা বেশি হতে পারে।

৫. লিচু ফুলের মধু বেশি পাতলা হলে ফেনাযুক্ত দেখায়। আর ঘনত্ব বেশি হলে কম ফেনা দেখা যায়।

৬. প্রাকৃতিকভাবে সংগৃহীত লিচুর ফুলে সামান্য ঝাঁকুনি দিলে ফেনা দেখা যায়। আর মধু পাতলা হলে কয়েক মাস পরে একটু জমে যেতে পারে। আর যদি মধু খুব ঘন হয় তবে তা দ্রুত জমাট বাঁধতে শুরু করে এবং পুরো মধু জমাট বাঁধতে পারে বা বেশির ভাগই জমাট বাঁধতে পারে, এক কথায় মধু যত ঘন হয় তত দ্রুত জমে যায়।

মধুর উপকারিতা

মধুর উপকারিতা ও স্বাদ সম্পর্কে অবগত নন এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া যাবে না। মধু মূলত একটি খাদ্য ও ঔষধি দ্রব্য। মানবদেহে প্রয়োজনীয় ভিটামিনের ৭৫ শতাংশই মধুতে পাওয়া যায়। আল্লাহ তায়ালা এই পৃথিবীতে জান্নাতের কিছু নেয়ামত দিয়েছেন- মধু তার মধ্যে একটি। মধুর উপকারিতা সম্পর্কে কুরআনে আন নাহল নামে একটি সূরা রয়েছে। আয়ুর্বেদিক, ভেষজ ও অন্যান্য চিকিৎসায় মধু মিশিয়ে বিভিন্ন অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধ তৈরির পাশাপাশি সরাসরি মধু খেলে বিভিন্ন রোগ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

1. প্রতিদিন সকালে ১ চামচ মধু খেলে সর্দি, কফ, কাশি ইত্যাদি সমস্যা থেকে মুক্তি মেলে।

2. আপনার মন ভালো করতে প্রতিদিন মধু এবং লেবুর রস মিশিয়ে গরম পানি পান করুন। সামান্য দারুচিনির গুঁড়াও ছিটিয়ে দিতে পারেন।

3. প্রতিদিন সকালে খালি পেটে মধু এবং লেবুর রস মিশিয়ে হালকা গরম পানি পান করলে কয়েক দিনের মধ্যে ওজন কমে যাবে। এছাড়াও প্রতিদিন এভাবে খেলে লিভার পরিষ্কার হয়, শরীরের বিষাক্ত উপাদান দূর হয় এবং শরীরের চর্বি গলে যায়।

4. মধুর সাথে মিশ্রিত দারুচিনি গুঁড়ো রক্তনালীর সমস্যা নিরাময়ে সাহায্য করে এবং রক্তে খারাপ কোলেস্টেরল 10% পর্যন্ত কমায়।

5. মধু এবং দারুচিনির মিশ্রণের নিয়মিত সেবন হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি হ্রাস করে এবং যাদের ইতিমধ্যে একটি হয়েছে তাদের দ্বিতীয় হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি কমায়।

6. আপনার হজমের সমস্যা থাকলে, প্রতিদিন সকালে মধু খাওয়ার অভ্যাস করুন। প্রতিটি ভারী খাবারের আগে এক চামচ মধু নিন। বিশেষ করে সকালে খালি পেটে এক চামচ মধু খান।

7. যারা সারাক্ষণ দুর্বলতায় ভোগেন তারা প্রতিদিন সকালে এক চামচ মধু খেলে সারাদিন শক্ত থাকে।

8. সকালে ত্বকে মধু লাগিয়ে ৩০ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন। মধুর বেশ কিছু উপাদান ত্বক দ্বারা শোষিত হয়। ফলে ত্বক হয়ে ওঠে মসৃণ ও সুন্দর। ত্বকে নিয়মিত মধু ব্যবহার করলে ত্বকের দাগও দূর হয়।

9. সামান্য গরম দুধের সাথে মধু খুব কার্যকর। প্রতিদিন সকালের নাস্তায় ১/২ চা চামচ মধু পান করা ভালো। মধু শরীরে তাৎক্ষণিক শক্তি জোগায়।

লিচু ফুলের প্রাকৃতিক মধুতে ফেনা হওয়ার কারণঃ

লিচু ফুলের প্রাকৃতিক মধু ঝাঁকালে সাদা ফেনা দেখা দেয় এবং পুরো মধু সাদা হয়ে যেতে পারে। এই সাদা ফেনা দেখে মধু ক্রেতাদের প্রায়ই সন্দেহ হয় মধু খাঁটি না ভেজাল। এই ফেনা দেখে আতঙ্কিত হওয়ার দরকার নেই, লিচু ফুলের মধু পাতলা হলে মধু ফেনা হয়ে যাবে।

তবে কেন ফেনা হয় তার ব্যাখ্যা আমি বৈজ্ঞানিক ভিত্তিতে দেওয়ার চেষ্টা করব, ইনশাআল্লাহ, আশাকরি লিচু ফুলের মধু খাঁটি না ভেজাল তা বুঝতে আপনাদের কাজে লাগবে।

লিচু ফুলের প্রাকৃতিক র মধুতে সক্রিয় এনজাইম, প্রোটিন এবং অ্যামিনো অ্যাসিড থাকে এবং মধু নিজেই একটি কার্বোহাইড্রেট জাতীয় পদার্থ। লিচু ফুলের মধুতে রয়েছে গ্লুকোজ এবং ফ্রুক্টোজ। আবার এই গ্লুকোজ ও ফ্রুক্টোজ কার্বন, অক্সিজেন ও হাইড্রোজেন মিলে তৈরি হয়।

লিচু ফুলের মধুতে সর্বদা উচ্চ আর্দ্রতা থাকে, যেমন খুব কম ঘনত্ব বা পাতলা মধু। মধু পাতলা হওয়ার কারণে হালকাভাবে নাড়ালে রাসায়নিক বিক্রিয়া শুরু হয় এবং কার্বন ডাই অক্সাইড উৎপন্ন হয় এবং কার্বন ডাই অক্সাইড গ্যাস মধুর পাত্রে বুদবুদ হয়ে সাদা ফেনা তৈরি ফেনা করে।

তখন সামান্য তাপ উৎপন্ন হয়। মাঝে মাঝে দেখা যায় প্লাস্টিকের বোতলে রাখা মধু বোতল ফুলে দেয়। এতে ভয় পাওয়ার কোনো কারণ নেই। বোতলটি কিছুক্ষণ স্থির রাখলে ফেনা আবার চলে যাবে। ফলে মধুতে কোনো সমস্যা হবে না এবং তা আবারও খাওয়া যাবে।

লিচু ফুলের মধু কি তেতো হয়ে যায়?

লিচু ফুলের মধু তেতো কেন তা জানতে প্রথমেই জানতে হবে মধুর গ্রেড কি। চলুন জেনে নিই গ্রেড কি, কত প্রকার।

মধুতে থাকা আর্দ্রতার উপর ভিত্তি করে মধুকে তিনটি গ্রেডে ভাগ করা হয়। এ গ্রেড, বি গ্রেড, সি গ্রেড।

মধুর আর্দ্রতা 25% বা তার বেশি হলে তাকে সি গ্রেডের মধু বলে। সি গ্রেডের মধু খুবই পাতলা, যা পানিতে সহজেই দ্রবীভূত হয়।

মধুর আর্দ্রতা 18%-25% হলে তাকে বি গ্রেডের মধু বলে। বি গ্রেডের মধু খুব পাতলাও নয় আবার খুব ঘন, মাঝারি গুড়ও নয়।

এবং যদি মধুর আর্দ্রতা 18% বা তার কম হয় তবে তাকে গ্রেড এ মধু বলা হয়। এই গ্রেডের মধু খুব ঘন।

সবচেয়ে আশ্চর্যের বিষয় হল, লিচু ফুলের মধু অত্যন্ত সুস্বাদু হলেও এই ফুলের মধু যদি সি গ্রেডের হয়, তবে মধু আহরণের কয়েক মাস পর মধুতে কিছুটা তিক্ততা থাকতে পারে। সাধারণত, সি গ্রেডের মধুতে এই মৃদু তিক্ততা হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে।

Ofela Food

Ofela food is a Best organic food brand in Bangladesh. This company first start working with pure honey in 2019. Vission Statement: A simple vision of OFELA FOOD is ‘’Ensuring organic food globally’’ Mission Statement: Mission of OFELA FOOD is ‘’Ensuring maximum customer satisfaction’’

Leave a Comment

Your email address will not be published.